মানুষের হৃৎপিন্ডের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন পদ্ধতি


মানুষের হৃৎপিন্ডের বর্ননা।


Blood circulation in heart
Credit- wikipedia.com


i) মানুষের হৃৎপিন্ড কতকটা শঙ্কাবাকার এবং পেরিকর্ডিয়াম নামে আবরণী দিয়ে ঢাকা থাকে।

ii) মানুষের হৃৎপিন্ডের চারটি প্রকোষ্ঠ। উপরের প্রকোষ্ঠ দুটি হল বাম অলিন্দ (left atrium) এবং ডান অলিন্দ (Right atrium) এবং নিচের দুটি প্রকোষ্ঠ হল বাম নিলয় (left ventricle) ও ডান নিলয় (Right ventricle)।

iii) ডান অলিন্দের সঙ্গে একটি করে উর্ধ্ব মহাশিরা (Superior vena cava) ও নিন্ম মহাশিরা( Inferior vena cava) এবং বাম অলিন্দের সঙ্গে দু জোড়া ফুসফুসীয় শিরা (Pulmonary vein) যুক্ত থাকে। 

iv) ডান নিলয় এর সঙ্গে ফুসফুসীয় ধমনী (pulmonary artery) এবং বাম নিলয়ের সঙ্গে মহধমনী (Aorta) যুক্ত থাকে।

v) ডান অলিণ্দ-নিলয়ের সংযোগস্থলে ট্রাইকাসপিড বা ত্রিপত্র কপাটিকা  এবং বাম অলিণ্দ-নিলয়ের সংযোগস্থলে বাইকাসপিড বা দ্বীপত্র কপাটিকা থাকে। অপর পক্ষে, ডান নিলয় ও ফুসফুসীয় ধমনী সংযোগস্থলে পালমোনারি ভালভ বা সেমিলুনার ভালভ এবং বাম নিলয় ও মহধমনীর সংযোগস্থলে সেমিলুনার ভালভ বা Aortic valve যুক্ত থাকে।

vi) অলিন্দের প্রাচীরের তুলনাই নিলয়ের প্রাচীর পুরু ও খাঁজবহুল। এই খাজ গুলিকে কলামনি কারনি বলে।

vii) দ্বিপত্র কপাটিকা ও ত্রিপত্র কপটিকা গুলি নিলয়ের সঙ্গে কর্ডিটেনডোরি নামক তন্তু দিয়ে যুক্ত থাকে।


মানুষের হৃৎপিন্ডের মধ্যে রক্ত সঞ্চালন বর্ণনা


Blood circulation through heart



i) হৃৎপিন্ডের অলিন্দদ্বয়  যখন প্রসারিত বা ডায়াস্টল অবস্থায় থাকে, তখন সারাদেহ থেকে দূষিত রক্ত উর্ধ্ব ও নিন্ম মহাশিরা দিয়ে ডান অলিন্দ আসে। এবং ফুসফুস থেকে বিশুদ্ধ রক্ত ফুসফুসীয় শিরা দিয়ে বাম অলিন্দে আসে।

ii) অলিন্দদ্বয় রক্তপুর্ন হলে সংকুচিত হয় অর্থাৎ  অলিন্দের সীস্টল হয়। এই সময় অলিন্দের রক্তচাপ বৃদ্ধি পাওয়ায় দ্বিপত্র ও ত্রিপত্র কপাটিকা খুলে যায়, ফলে ডান অলিন্দের রক্ত ডান নিলয়ে এবং বাম অলিন্দের রক্ত বাম নিলয়ে আসে। এই সময় নিলয়দ্বয় প্রসারিত অবস্থায় থাকে।

iii) নিলয়দ্বয় রক্তপুর্ন হলে ওরা সঙ্কুচিত হয় অর্থাৎ নিলয়ের সিস্টল হয়। ফলে আন্ত নিলয় চাপ বেড়ে যায়। দ্বিপত্র ও ত্রিপত্র কপাটিকা বন্ধ হয় এবং সেমিলুনার কপাটীকগুলি খুলে যায়। ফলে ডান নিলয় থেকে রক্ত ফুসফুসীয় ধমনীতে এবং বাম নিলয় থেকে রক্ত মহধমনীতে প্রবেশ করে।

iv) এইভবে হৃৎপিণ্ড ক্রমগত সঙ্কুচিত ও প্রসারিত হয়ে হৃত্পিণ্ডের মধ্যে রক্ত সংবহন ঘটায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ করা যায় যে, অলিন্দ দ্বয় যখন সঙ্কুচিত হয় নিলয়দ্বয় তখন প্রসারিত অবস্থায় থাকে, অপর পক্ষে অলিণ্দদ্বয় যখন প্রসারিত হয় নিলয়দ্বয় তখন সঙ্কুচিত অবস্থায় থাকে।



Post a Comment

0 Comments